সেনাবাহিনীর ২০ ইসিবি’র তত্বাবধানে এগিয়ে চলেছে রামগড়-তানাক্কাপাড়া সীমান্ত সড়ক নির্মাণ প্রকল্প।

মো:নিজাম উদ্দিন,রামগড়,খাগড়াছড়ি:

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ২০ ইসিবি’র তত্বাবধানে এগিয়ে চলেছে রামগড়-তানাক্কাপাড়া সীমান্ত সড়কের নির্মাণ কাজ।

গত ১১ সেপ্টেম্বর রামগড়ের পিলাকছড়া এলাকায় প্রকল্পটির কর্যক্রম উদ্বোধনের পরে দিনরাত কাজ করে চলেছেন সেনাবাহিনী। প্রকল্পের ৫৬ কিলোমিটার সড়কের মধ্যে প্রায় ১০ কিলোমিটারের মাটি কেটে সমান করানোর কাজ শেষ হয়েছে। দূর্ঘম এলাকার যেখানে কোন রাস্তা ছিলনা সেখানে মাটি কেটে প্রাথমিক রাস্তা তৈরীর পর থেকে সংশ্লিষ্ট এলাকায় বসবাসকারীরা এরই মধ্যে সুফল পেতে শুরু করেছে।

মাটিরাঙা ৬নং সদর ইউপি চেয়ারম্যান চন্দ্র কিরণ ত্রিপুরা, স্থানীয় স্কুল শিক্ষক দুলাল ত্রিপুরা, রামগড় ১নং ইউপির স্থানীয় মহিলা মেম্বার চাইওয়া চৌধুরী বলেন, সীমান্ত সড়ক তৈরীর কাজ শুরুর পর থেকে অনুন্নত অনগ্রসর এলাকার জীবনমানের উন্নতি হচ্ছে। এরই মধ্যে সীমিত আকারে মোটরসাইকেল ও সিএনজি গাড়ী চলাচল করায় অতি সহজে রামগড় বাজারে তাদের উৎপাদিত ফসল নিয়ে গিয়ে বিক্রি করতে পারছে। তারা সরকার ও সেনাবাহিনীকে প্রকল্পটি বাস্তবায়নে কাজ করায় ধন্যবাদ জানান।

গত রবিবার দুপুরে মাটিরাঙ্গা অভ্যায় সীমান্ত সড়ক (রামগড়-তানাক্কাপাড়া) নির্মাণ প্রকল্পে ক্ষতিগ্রস্ত ফসলি জমির ২৮ জন কৃষকের আদা, হলুদ, ধান, কচু ক্ষেত ও কলা বাগানের ক্ষতিপূরণের ৩ লক্ষ ৬৫ হাজার টাকা তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ২০ ইসিবি’র অধিনায়ক লে: কর্নেল আমজাদ হোসেন।

এসময় তিনি স্থানীয়দের সহযোগীতা কামনা করে বলেন, সীমান্ত সড়ক হলে এ অঞ্চলের ব্যবসা বাণিজ্য সম্প্রসারণের পাশাপাশি স্থানীয়দের জীবনমান উন্নত হবে। তিনি আরো বলেন অত্র অঞ্চলের জীবনমান, শিক্ষা, যোগাযোগ, কৃষি বিপননে ব্যাপক পরিবর্তনসহ এই অঞ্চলে বসবাসকারী জনগোষ্ঠীরমান বৃদ্ধি পাবে।

সীমান্ত সড়ক (রামগড়-তানাক্কাপাড়া) নির্মাণ প্রকল্প কর্মকর্তা মেজর এস এম খালেদুল ইসলাম বলেন, মাঠপর্যায়ে জরিপ করে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করে কৃষকদের চাহিদানুযায়ী ২৮ জন কৃষককে সর্বমোট ৩ লক্ষ ৬৫ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়েছে পাশাপাশি আগামীতেও এই প্রকল্পে যারা ক্ষতিগ্রস্থ হবে তাদেরতে উপযুক্ত প্রমাণ সাপেক্ষে ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে। উলে­খ্য, গত ১১ সেপ্টেম্বর রামগড়ের পিলাকছড়া এলাকায় প্রকল্পটির কার্যক্রম উদ্বোধন করেন প্রকল্পের উপ-সাইট ইনচার্জ ২০ ইসিবি’র সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার মো: মমতাজ আহমেদ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ২০ ইসিবি’র অধিনায়ক ও প্রকল্প পরিচালক লে. কর্ণেল আমজাদ হোসেন দিদার এসময় স্থানীদের মধ্যে বক্তব্যে প্রদান করেন মাটিরাঙা ৬নং সদর ইউপি চেয়ারম্যান চন্দ্র কিরণ ত্রিপুরা, স্থানীয় স্কুল শিক্ষক দুলাল ত্রিপুরা, রামগড় ১ইউপির স্থানীয় মহিলা মেম্বার চাইওয়া চৌধুরী প্রমূখ।

পরে ২৮ জন ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকের মাঝে ফসলের ক্ষতি বাবদ ৩ লাখ ৬৫ হাজার ৫০০ টাকা নগদ প্রদান করেন। উলে­খ্য, রামগড় সদর থেকে মাটিরাঙা উপজেলার করইল্যাছড়ি ৫৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যর সড়কটি নির্মাণ করছেন বাংলাদেশ সেনাবাহীনির ২০ ইঞ্জিনিয়ার কনেস্ট্রাকশন ব্যাটালিয়ন এর ৩৪ ইঞ্জিনিয়ার কনেস্ট্রাকশন ব্রিগেড ।

আজ মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমার ৩৮ তম মৃত্যু বার্ষিকী

প্রতিদিন সংবাদ এর আপডেট পেতে আমাদের পেজে লাইক করে সঙ্গে থাকুন 

 

প্রিমিয়াম বাংলা কোর্স ডাউনলোড করুনঃ 

Leave a comment

Your email address will not be published.